ব’উদি প’টাতে হলে এই ৬ টি প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করুন, ৩ দিনেই ১০০% ফল পাবেন হাতেনাতে

0
2

বিয়ের পর মেয়েদের জীবনটা একদম অন্যরকম হয়ে যায়, তাঁদের জীবনের একটা নতুন অধ্যায় শুরু হয়। সেই অধ্যায় ভালো নাকি খা’রাপ সেই বি’ত’র্কে আর না যাওয়াই ভালো, তবে একটা বিষয়ে খুব খুব জো’ড় দিয়েই বলা চলে যে,

বিয়ের পর মে’য়েদের জীবনযাত্রায় একটা স্বা’ভাবিক পরিবর্তন আসে, নতুন পরিবারে আসার কারণে অনেক নতুন মানুষের সাথেও তাঁদের পরিচয় ঘ’টে, আর সেখানে এসে তাঁরা সবথেকে যে অসুবিধার স’ম্মু’খীন হন,

সেটা হলো নানারকম প্রশ্নের মো’কাবি’লা ক’রতে হয় তাঁদের। তবে এমনটা আমি কখনোই বলছি না যে, তাঁদের প্রশ্ন করা কোনো অ’পরা’ধ।তবে এখানে কথা হচ্ছে যে, এমন কিছু প্রশ্ন আছে, যা নব বিবাহিত ব’ধূকে রীতিমত অ’স্বস্তি’তে ফে’লে দেয়।

সেসব প্রশ্নে উত্তর দিতে মেয়েরা কখনোই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেননা। তবে এবার আসুন জে’নে নেওয়া যাক, যে এমন কি প্রশ্ন আছে, যা কখনও কোনো সদ্য বিবাহিত মহিলাকে না করাই উচিৎ। নাহলে কিন্তু আপনিও অজান্তেই তাঁর অপছন্দের মানুষ হয়ে উঠতে পারেন।

১. বিয়ে তো হল অনেকদিন হয়েছে, এবার বা’চ্চা কবে নি’চ্ছ? এই প্রশ্নটা কিন্তু নব বধূরা সবথেকে বেশি অ’খু’শি হন, তার কারণ হলো, বিয়ের পরে বাচ্চা নেওয়ার বিষয়টা সব মহিলাই একান্ত গো’প’ন রাখতে চায়।

তাই এই ধ’রণের প্রশ্ন কিন্তু তাঁদের কখনও করবেন না, কারণ এই ধ’রনের প্রশ্ন তাঁদের খুব অপছন্দ।২.বিয়ের পর অনুভূতি কেমন? বিয়ে করে এখন কেমন লাগছে তোমা’র?- এই ধ’রনের প্রশ্ন নব বধূদের অনেক প্রতিবেশিরাই জিজ্ঞেস করে থাকেন।

কিন্তু ব্যপারটা হলো যে, এই প্রশ্নের কোনো উত্তর হয়না। তাই কেউ যদি নব ব’ধূকে এরকম প্রশ্ন করেন, তাহলে নব ব’ধূরা প্রশ্ন কর্তাদের দিকে বোকার মত হাঁ করে তাকিয়ে ছাড়া কোনো উপায় খুঁ’জে পান না।

৩.তোমা’র মধ্যে কিন্তু আগের থেকে অনেক পরিবর্তন এসেছে :- সবসময় মনে রাখবেন যে, বিয়ের পর কিন্তু ১ টি নয়, মূলত ৩ টি সংসারের দায় দায়িত্ব তাঁদের ঘাড়ে চে’পে যায়, তখন মানুষের স্বা’ভাবিক চলাফেরায় একটু হলেও পরিবর্তন আসে।

আর এটাই খুব স্বা’ভাবিক। এই নিয়ে কোনো কথা বা বলা, বা প্রশ্ন করা পুরোপুরি অবাঞ্ছিত।৪. আচ্ছা তুমি এখনও তোমা’র পদবিটা পরিবর্তন করছ না কেন ? :- আচ্ছা আপনার কেন মনে হয় যে, নাম পরিবর্তন করাটা খুব জরুরী?

একজন মেয়ের বিয়ে হয়ে গেলে কি তাঁকে তাঁর পদবিটা বদল ক’রতেই হবে? হ্যাঁ, তার স্বামী-শ্বশুরবাড়ির এই বিষয় নিয়ে এতো মাথা ব্যা’থা নেই যখন, তবে কেন পাড়া-প্রতিবেশি এই বিষয়ে এত আগ্রহ দেখায়, তা কিছুতেই বুঝতে পারেন না এই নববধূগণ।

৫. আচ্ছা এখনও নিজে’র ঘর/ফ্ল্যাট কেন কিনছ না ? অনেকেই এমন আছেন যাঁরা মনে মনে ভাবেন যে, ‘জ্বি, আপনি টাকাটা পাঠিয়ে দিন, কালকেই একটা ফ্ল্যাট কিনে ফেলবো’। যিনি সংসার চালান একমাত্র তিনিই জা’নেন যে,

তাকে সংসারের সমস্ত বিষয়টা সা’মা’ল দিতে হয়।৬. আচ্ছা তোমা’র শ্বশুরবাড়ির লোকজন ঠিক কেমন? মানুষের প্রশ্নের কোনো সীমা নেই এবং তার কোনও শেষও নেই।

একদিকে লোকজন মেয়েটির কাছে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নামে কথা জিজ্ঞেস করবে, এবং তারপর সেটাকে আরো বড় করে রঙ মাখিয়ে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সামনে উপস্থাপন করবেন। এটাই তাঁদের স্বভাব।