ছাদে লাউ চাষ করবেন যে উপায়ে

0
6

সবার কাছেই লাউ একটি জনপ্রিয় সবজি। লাউ প্রায় সব ধরনের মাটিতে জন্মে। প্রধানত দোআঁশ থেকে এটেল দোআঁশ মাটি লাউ চাষের জন্য উত্তম। কিন্তু টব বা ছাদ বাগানে লাউ চাষের দোআঁশ কিংবা বেলে দোআঁশ মাটি ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু বেলে দোআঁশ মাটি ব্যবহার করলে মাটিতে জৈব সারের পরিমাণ একটু বেশি দিতে হবে। শীতকালীন লাউ চাষের জন্য সেপ্টেম্বর-অক্টোবরের মধ্যেই বীজ বপন করতে হবে। আগাম শীতকালীন ফসলের জন্য আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে লাউয়ের বীজ বপন করতে হবে। লাউয়ের বীজ পলিব্যাগে বপন করাই ভালো।

বীজ বপনের ৮-১২ ঘন্টা আগে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর পানি থেকে বীজ নিয়ে টিসু পেপার দিয়ে অতিরিক্ত পানি শুকিয়ে পলিব্যাগে বীজ বপন করতে হবে। প্রতি পলিব্যাগে দুটি করে বীজ বুনতে হবে। পলিব্যাগের মাটি যেন শুকিয়ে না যায় খেয়াল রাখতে হবে। প্রয়োজনে হালকা পানি দিতে হবে।

ছাদে যেভাবে লাউ চাষ করবেন: ছাদ বাগানে লাউ চাষের জন্য হাফ ড্রাম বা সমপরিমাণ পাত্র ব্যবহার করতে হবে। হাফ ড্রামের তলায় চার-পাঁচটি ছিদ্র করতে হবে, যাতে সহজেই অতিরিক্ত পানি নিষ্কাশিত হয়। হাফ ড্রামের তলায় ছিদ্রগুলো ইটের ছোট ছোট টুকরো দিয়ে বন্ধ করে দিতে হবে।

এবার প্রতিটি হাফ ড্রামের জন্য দুই ভাগ দোআঁশ বা বেলে দোআঁশ মাটি, ১ ভাগ গোবর, ৫০ গ্রাম টিএসপি সার, ৫০ গ্রাম পটাশ, ২৫০ গ্রাম সরিষার খৈল একত্রে মিশিয়ে ড্রাম ভরে পানিতে ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে ১০-১২ দিন। তারপর মাটি কিছুটা খুঁচিয়ে আবার চার-পাঁচ দিন এভাবেই রেখে দিতে হবে। যখন মাটি ঝুরঝুরা হবে তখন পলিব্যাগে বপন করা একটি সরল লাউয়ের চারা রোপণ করতে হবে। চারা রোপণের চারদিকের মাটি হাত দিয়ে চেপে চেপে দিতে হবে।

গোড়ার দিকে মাটি কিছুটা বেশি দিয়ে একটু উঁচু করে দিতে হবে। চারা রোপণের পর প্রথম দিক পানি খুব পরিমাণে দিতে হবে। ধীরে ধীরে পানির পরিমাণ বাড়াতে হবে। লাউ গাছে প্রচুর পানি প্রয়োজন হয়। প্রতিদিনের মাছ-মাংস ধোয়া পানি মাঝে মধ্যে লাউ গাছ দিলে বিশেষ উপকার হবে।

ছাদ বাগানে টব বা ড্রামে লাগানো লাউ গাছের পানির অভাব হলে ফলন ব্যাহত হয়। টবে বা ড্রামে লাউ চাষ করতে পানি একটু বেশি প্রয়োজন হয়। নিয়মিত আগাছা পরিষ্কার রাখতে হবে।

প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে একবার ড্রামের মাটি হালকাভাবে খুঁচিয়ে দিতে হবে। লাউ গাছটি যাতে পর্যাপ্ত রোদ পায় খেয়াল রাখতে হবে। যেভাবে অন্যান্য পরিচর্যা করবেন গাছের সঠিক পরিচর্যা নিশ্চিত করতে লাউ গাছ একটু বড় হলে গোড়া থেকে কিছুটা দূরে সামান্য ইউরিয়া সার প্রয়োগ করতে হবে। সরিষার খৈল পচা পানি পাতলা করে গাছে ১৫-২০ দিন অন্তর অন্তর নিয়মিত দিতে হবে।