মে’য়েদের সবচেয়ে দু’র্বল পয়েন্ট কি? জেনে নিন বিয়ের পর কাজে লাগবে

0
5

মে’য়েদের শ’রীরে এমন কিছু জায়গা আছে যেখানে স্প’র্শ করলে মে’য়েরা অনেক বেশি ‘টা’র্ন অন’ হয়ে পড়ে।

কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই ছেলেরা সেইসব অংশের দিকে নজর দেয় না।

ফো’রপ্লে সীমাবদ্ধ থাকে ব্রে’স্ট, নি’পলস আর কিসের মধ্যেই। তারপরেই ই’ন্টারকোর্স। ব্যাপারটা যেন একঘেয়েই। কিন্তু কিছু জায়গায় স্প’র্শ করে, ভালবেসে, পাগ’ল করে দেওয়া যায় মে’য়ে’দের।

ঘাড়ের পিছন দিকে:মে’য়েদের শ’রীরে এটাই সবচেয়ে সে’ক্সু’য়ালি টার্নিং অ’ন এরিয়া। ছেলেরা কিন্তু অনেকসময় এই অংশটা এড়িয়ে যায়।কিন্তু শুধু এখানে স্প’র্শ করেও একজন মহি’লাকে দ্রু’ত উ’ত্তে’জিত সম্ভব।

একজন মে’য়ে যখন সা’মান্য টার্ন অন থাকে তখন তার পিছন দিকের চুল সরিয়ে ঘাড়ে হাত বুলিয়ে দেখুন। আস্তে আস্তে কি’স করুন। দেখবেন আপনার ‘স’ঙ্গি;নী পা’গল হয়ে যাবে। সামান্য লি’ক করুন, সুড়’সুড়ি দিন।

দেখবেন আপনার সঙ্গি’নী উত্তে’জিত হয়ে পড়েছেন। কান: কানে হালকা স্প’র্শ, চু’ম্বন অনেক বেশি ‘সে’ক্সু’য়া’লি অ্যা’ট্রাক্টেড’ করে দেয় মে’য়েদের। কানের উপর আস্তে আস্তে নিঃশ্বাস ফেললে পাগল হয়ে পড়বে আপনার স’ঙ্গিনী।

হালকা কা’মড় দিতে পারেন কানের লতিতে। লিক করতে পারেন কানের চার পাশে যে কোন জায়গায়।কিন্তু কানের ছিদ্রে নয়, এটি মেয়েদের জন্যে একটা টার্ন অফ। উরু বা থাই: ‘মেয়েদের দ্রু’ত উ’ত্তে’জিত করত তিন নম্বরটির পয়েন্টটির জুড়ি মেলা ভার।

স’ঙ্গিনীর উ’রুর সফট স্প’টে স্প’র্শ করুন। দেখবেন সে কি করে। হাতের তালু ও পায়ের পাতা: হাত দিয়ে প্রতি মুহূর্ত স্প’র্শ করছেন, কিন্তু তার হাতেই যে লুকিয়ে আছে অসংখ্য সে’ক্সু’য়াল ফি’লিংস।

স’ঙ্গিনীর হাতের উপর ‘নিজের আঙু’লগুলি বোলাতে থাকুন, সুড়’সুড়ি দিন। এটিই যেন তাঁকে পরবর্তী সে’ক্সু’য়াল অ্যাক্টিভিটিরই মেসেজ দেবে। দেখবেন সেও সাড়া দেবে। টার্ন অন করবে আপনার স’ঙ্গিনীকে।

পা: মহি’লাদের দ্রু’ত উ’ত্তেজিত করতে পায়ে হাত বুলিয়ে সুড়সুড়ি দিলে অনেকেই বেশ মজা পায়।তবে কিছু মে’য়ের এটি পছন্দ নয়। জিজ্ঞেস করে নিন আপনার স’ঙ্গিনীকেই।

পিঠ: পিঠ, বিশেষ করে পিঠের নিচে, কোমরের দিকের অংশটাতে স্প’র্শ ও আদর চায় মে’য়েরা। মেরুদন্ড বরাবর চু’মু দিতে দিতে নিচে নেমে যান। তাঁর সে;ক্স করার মু’ড আরও

কলার বোন: একটি মেয়েকে দ্রু’ত উ’ত্তে’জিত করতে তাঁর ব্রে;স্টের দিকে যাওয়ার আগে, তার গলার নিচে, কলার বোনের দিকে নজর দিন। এতে সে বুঝবে আপনি কতটা চান আপনার স’ঙ্গিনীকে।