ডি’ম্বাশয়ে সিস্ট (Cyst) হবার ৮ টি ল’ক্ষণ, যা প্রতিটি মেয়ের জানা দরকার!

0
4

প্রতিটি মহিলার ডিম্বাশয় ক্যা’ন্সারের প্রাথমিক সত’র্কতার লক্ষণ স’স্পর্কে সচে’তন হওয়া উচিত, কিন্তু তাদের অধিকাংশই ডিম্বাশয়ে সিস্ট শব্দটি স’স্পর্কে কম সচে’তন। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, আজকাল বিপজ্জনক পলিস্টিসিক ডিম্বাশয় রো’গের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে।

যেহেতু অনেকে আছে, যারা এই অবস্থার স’স্পর্কে সচে’তন নাও হতে পারে, তাই আম’রা এটা নিয়ে কিছু আলোচনা করবো। ডিম্বাশয়ে সিস্ট ঘ’টে যখন ডিম্বাশয় অসংখ্য সিস্ট দ্বারা গঠিত হয়।

যদিও এই সিস্টের আ’কার বড় নয়, তবে সময়মত চিকিৎ’সা না করলে তারা বড় এবং বিপজ্জনক হতে পারে। রো’গের গু’রুতর প’রিণতি রো’ধ করার জন্য আপানকে খুব ভালভাবে প্রাথমিক লক্ষণগু’লিকে চিনতে হবে।

প্রস্রাবের সময় অসুবিধা দেখা দিলে বা ঘন ঘন প্রস্রাব করার প্রয়োজন হয়। এটির প্র’ভাব প্রধানত প্রস্রাবের উপর পরে, প্রস্রাবের সময় জ্বা’লা আনুভব হয়, ঘন ঘন প্রস্রাবেরও প্রয়োজন পরে।

বে’দনাদায়ক মাসিক বা অস্বা’ভাবিক র’ক্তক্ষরণ। এটির ফলে মহিলাদের মাসিকের সময় অত্যাধিক র’ক্তক্ষরণ হয় ও প্রজন্ড ব্যাথা দেখা দেয়। মি’লনের সময় ব্যাথা। সাধারণত কোন পুরুষের স’ঙ্গে মি’লনে অসুবিধা হয়, মি’লনের সময় যৌ’নাঙ্গে প্রচন্ড জ্বা’লা বা ব্যাথা অ’নুভব হয়।

ক্রমাগত বমি করা বা বমি বমি ভাব। এটির ফলে ক্রমাগত গা-গুলাতে থাকে, বমি হতে পারে বা বমি বমি ভাব থাকতে পারে। হ’ঠাৎ ওজন বৃ’দ্ধি পাওয়া। কিছুদিনের মধ্যে হ’ঠাৎ ওজন বেরে যাবার সম্ভাবনা থাকে।

ক্ষুধা হ্রাস পায় বা খুব দ্রুত স’ম্পূর্ণ অনুভূতি হয় । এটির ফলে মহিলাদের ক্ষুধা হ্রাস পায় বা অল্প কিছু খেলেই যেন মনে হয় পে’ট ভর্তি হয়ে গেছে। নিম্ন ব্যাথা দ্রুত বৃ’দ্ধি পায় । এটির ফলে কোমর বা আশেপাশে ব্যাথা দ্রুত বৃ’দ্ধি পায়।

পে’ট ফুলে যায় বা ব্য’থা হয় । অস্বা’ভাবিকভাবে পে’ট ফুলে যেতে থাকে ও মাঝে মধ্যেই ব্যাথা হতে পারে। যদি আপনি উপরের তালিকাভুক্ত কোন লক্ষণের সাক্ষী হন তবে তাদের উপেক্ষা করবেন না, কোন দেরি না করে ডাক্তারের কাছে যান।