৪ জন প্রেমিকের স’ঙ্গে পালিয়ে অবশেষে লটারির মাধ্যমে বিয়ে

0
5

ভাগ্য করে বউ পাওয়া যায়, এ কথা হয়তো শুনেছেন। কিন্তু লটারিতে বউ পাওয়া যায়, এ রকম কথা আগে শুনেছেন কখনও? স’ম্প্রতি এ রকম অদ্ভুত ঘ’টনারই সাক্ষী থেকেছে,

ভারতের উত্তরপ্রদেশের অম্বেডকরনগরের একটি গ্রাম। অম্বেডকরনগরের টান্ডা থা’না এলাকার এক তরুণী পাঁচ দিন আগে পালিয়ে গিয়েছিলেন চার প্রেমিকের স’ঙ্গে । ওই যুবকরা আজিমনগর থা’না এলাকার বাসি’ন্দা। বাড়ি থেকে পালিয়ে এক যুবকের আ’ত্মীয়ের বাড়িতে ছিলেন ওই তরুণী। কিন্তু ঘ’টনা সামনে আসতেই তারা গ্রামে ফিরতে বাধ্য হন।

বি’ষয়টি নিয়ে তরুণীর বাবা-মা থা’নায় অ’ভিযোগ দা’য়েরের প্র’স্তুতি নিয়েছিলেন। কিন্তু গ্রামবাসীরাই থা’নায় অ’ভিযোগ দা’য়ের করা থেকে বিরত করেন তাদের। এই ঘ’টনা নিয়ে পঞ্চায়েতের সভা বসে। সেখান থেকে তরুণীর পরিবারকে প্রস্তাব দেওয়া হয় চারজনের মধ্যে কোনো এক যুবকের স’ঙ্গে বিয়ে দেওয়া হবে তরুণীর। তার পরিবারও তাতে সম্মতি দেয়।

কিন্তু ওই চারজনের মধ্যে কাকে বিয়ে করবেন তরুণী? এ নিয়ে তৈরি হয় জটিলতা। কারণ ওই তরুণী ঠিক ক’রতে পারছিলেন না কাকে বিয়ে করবেন তিনি। কারণ, চার যুবককেই পছন্দ ছিল তার। এর মধ্যে কাকে সবচেয়ে বেশি পছন্দ তাও ঠিক ক’রতে পারছিলেন না। অ’পর দিকে যুবকরাও ঠিক ক’রতে পারছিলেন না, কী করবেন। তখন পঞ্চায়েতের ক’র্তাব্য’ক্তিরা ঠিক করেন,

চার যুবকের নাম লেখা কাগজ রাখা হবে একটি পাত্রে। চারটির মধ্যে থেকে বেছে নেওয়া কাগজে যার নাম থাকবে তিনিই বিয়ে করবেন তরুণীকে। সেই মতো একটি পাত্রে রাখা ছিল নাম লেখা কাগজ। গ্রামের একটি বাচ্চাকে সেখান থেকে কাগজ তুলতে বলা হয়। সেই কাগজে যে যুবকের নাম ছিল তাকেই বিয়ে ক’রেছেন তরুণী। মেয়েটির ব্য’ক্তিগত বি’ষয়টির কথা মাথায় রেখে গ্রামবাসীরা এই ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেননি।